আন্দোলন থেকে সরে এল ১০৩২৩ এর একাংশ আন্দোলনকারী।

নিজস্ব সংবাদদাতা : অবশেষে আন্দোলন থেকে সড়ে এল ১০৩২৩ এর একাংশ আন্দোলনকারী। করোনা নিয়ে উদ্বিগ্ন গোটা বিশ্ব। সেই জায়গায় আগাম সতর্কতা ছায়া এই মহামারীর হাত থেকে নিজেকে রক্ষা করা সম্ভব নয়।

অন্যকেও আক্রান্ত হওয়ার হওয়ার হাত থেকে বাচানো যাবে না। কেবল সতর্কতা মূলক ব্যবস্থাই পারে এই মারনব্যাধির হাত থেকে সকলকে রক্ষা করতে। সামজিক দূরত্ব স্থাপনের মাধ্যমে করোনা রোগের প্রাদুর্ভাব কমানো সম্ভব। তাই রাজ্য জুড়ে জমায়েত এড়াতে জারি করা হয়েছে ১৪৪ ধারা। কিন্তু সেই ১৪৪ ধারাকে উপেক্ষা করে আন্দোলন চালিয়ে যায় ১০৩২৩ এর বিভিন্ন সংগঠন। ইতিমধ্যে রবিবার জনতার কার্ফুর আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

সেদিন সকাল ৭ টা থেকে রাত ৯ টা পর্যন্ত বাড়ি থেকে না বেরুতে আহ্বান জানিয়েছেন সকলের উদ্দেশ্যে। এরই মধ্যে শনিবার ১০৩২৩ এর একাংশ ফের জড়ো হয় শিক্ষক ভবনের সামনে। পুলিশ স্পষ্ট করে জানিয়েদেয় এই ১৪৪ ধারা সামগ্রিক বিষয়কে মাথায় রেখেই নেওয়া হয়েছে। কোন মতেই জড়ো হতে দেওয়া হবে না। সেখান থেকে এক প্রতিনিধি দল শিক্ষা অধিকর্তার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে। কিন্তু ১ এপ্রিল থেকে তাদের চাকুরী অব্যাহত থাকবে কি না তা জানাতে বলেন। শিক্ষা অধিকর্তা স্পষ্ট করে জানান আইন মেনে সরকার সিদ্ধান্ত নিচ্ছে। অপেক্ষা করতে হবে। এরপর প্রতিনিধি দল বেড়িয়ে এসে সকলের সঙ্গে সিদ্ধান্ত করে তাদের ঘোষিত আন্দোলন কর্মসূচী সাময়িক কালের জন্য প্রত্যাহার করে নেয়।

একই সঙ্গে রবিবার জনতার কার্ফু পালনের প্রধানমন্ত্রীর আহ্বানে সকলকে সামিল হতে আবেদন জানান। সুস্থ দেহ ও সুস্থ মন গড়ার জন্য এই সিদ্ধান্ত মেনে চলা অত্যন্ত জরুরি। এই দিকটি মাথায় রেখেই এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ বলে জানান ১০৩২৩ এর একাংশ আন্দোলনকারীরা।